কোভিডে মৃতদের স্মরণে ১০০০ বাতি সম্বলিত একটি শিল্পকর্মের নির্মাণ

কোভিডে মৃতদের স্মরণে ১০০০ বাতি সম্বলিত একটি শিল্পকর্মের নির্মাণ

এক হাজারটি বাতি সম্বলিত একটি শিল্পকর্ম (ইন্সটলেসন) নির্মাণ করা হয়েছে করোনা ভাইরাস মহামারিতে প্রাণ হারানো মানুষদের কথা স্মরণ করে।

শিল্পী ব্রূস মানরো বলেছেন যে তার এই “আলোর মাঠ” নামক শিল্পকর্মটি তাঁদের আত্মার কথা ভেবে করা যারা আমাদের ছেড়ে চলে গিয়েছেন।

যুক্তরাজ্যের উইল্টশায়ারের মাটিতে বুনে রাখা প্রতিটি আলোর কান্ড যেন আশা, উদ্দীপনা ও সাহস জোগাতে দাঁড়িয়ে আছে একেকটি বিদেহী আত্মার প্রতীক হয়ে।

ইউরোপীয় দেশগুলোর মধ্যে এই প্রথম যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর হার ১ লক্ষ ছাড়িয়েছে গত মঙ্গলবার।

“মৃতদের প্রতি আপনজনদের ভালোবাসা, আবার, প্রয়াতরা যেই ভালোবাসা আত্মীয় সহ সকলকে দিয়ে গেছেন তা যেন যুগ যুগ বেঁচে থাকে – সেই লক্ষেই এই আলোর মাঠের সৃষ্টি। এই সৃষ্টি জীবনকে নিয়ে – মৃতুকে নিয়ে নয়”, মানরো বলেন। এই কঠিন করোনাকালের মধ্যে এই শিল্পকর্মটি যেন আশা ও উদ্দীপনার একটি মূর্ত প্রতীক।

ভুক্তভোগীদের মধ্যে একজন হচ্ছেন জ্যান হ্যাসলাম এর স্বামী টেরি, যিনি ৭০ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে মারা যান গত ৮ এপ্রিল ২০২০-এ।

জ্যান হ্যাসলাম বলেন তিনি যেন তাঁর স্বামীকে কাছে খুঁজে পান এই আলোর মাঠে বেড়াতে আসলে। তিনি মাঝেমধ্যে তাঁর কন্যা কেইটিকে নিয়ে ঘুরতে আসেন এই শিল্পকর্মের কাছে।
“আমরা টেরিকে বিদায় জানাবার কোনো সুযোগ পাইনি। তাই এখানে এসেই যেন তাঁকে সেই শেষ বিদায়টি জানিয়ে যেতে পারছি। এখানে সে যেন আমাদের খুব কাছেই আছে।”

এই দম্পতিটি দীর্ঘ ৩৬ বছর বিবাহিত জীবন কাটিয়েছেন। কিছুদিন আগেই তাদের প্রথম নাতির জন্ম হয়। এখন টেরির কথা স্মরণ করে চলছেন প্রতিনিয়ত তাঁর স্ত্রী ও কন্যা দুজনেই।

তথ্যসূত্র: বিবিসি

13 Comments

  1. Good

  2. হম ..

  3. মহামারী করোনা ভাইরাসে যারা মারা গেছেন তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করি।

Leave a Reply